Primary Assistant Teacher Job Exam & Admit Card Download

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা ৫ ধাপে অনুষ্ঠিত হবে। আর প্রথম ধাপের পরীক্ষা হতে পারে আগামী ১০ মে। ২০ হাজার জন পর্যন্ত প্রার্থী আছে এরকম ৭ জেলায় অনুষ্ঠিত হবে প্রথম ধাপের পরীক্ষা।মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) বুয়েটে বিশেষজ্ঞদের সাথে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বৈঠকে পরীক্ষার সময়সূচি, ওএমআর ফরম ডিজাইন ও মূল্যায়ন এবং ফলাফল প্রকাশের কার্যক্রম নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রথম ধাপে  ১০ মে  নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে পারে। যেসব জেলায় লিখিত পরীক্ষা আগে শেষ হবে সেখানে আগেই মৌখিক পরীক্ষা নিয়ে চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হবে।

Admit Card Download

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের একজন কর্মকর্তা মঙ্গলবার রাতে দৈনিকশিক্ষা ডটকমকে বলেন, প্রস্তুতি ঠিকঠাক থাকলে আগামী ১০ মে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের  পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এবার প্রার্থী বেশি থাকায় ৫ ধাপে নিয়োগ পরীক্ষা হবে।

এর আগে গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ‘সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-১৮’ লিখিত পরীক্ষা শুরুর নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছিলো মন্ত্রণালয়। তবে এসএসসি পরীক্ষার কারণে সেটি পিছিয়ে মার্চে নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। গত ১৫ জানুয়ারি মন্ত্রণালয়ের এক সভায় নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ শুরুর সিদ্ধান্ত নেয় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। সে লক্ষ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে অধিদপ্তরকে নির্দেশনা দেয়া হয়। তবে ১৩ মার্চ ‘জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০১৯’ পালিত হওয়ায় ওই সময়ও পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হয়নি।

Admit Card Download

জানা গেছে, এবার নিয়োগ পরীক্ষা বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) তত্ত্বাবধানে সম্পূর্ণ ডিজিটালাইজড পদ্ধতিতে নেয়া হবে। নির্ধারিত জেলায় পরীক্ষার আগের রাতে ইন্টারনেটের মাধ্যমে জেলা প্রশাসকের (ডিসি) কাছে প্রশ্নপত্রের সব সেট পাঠানো হবে। পরীক্ষার দিন সকাল ৮টায় প্রশ্নপত্র ছাপিয়ে তা কেন্দ্রে পৌঁছে দেয়া হবে। পৌর এলাকার মধ্যে এবার পরীক্ষা নেয়া হবে। আবেদনকারীর আসন বুয়েট অত্যাধুনিক সফটওয়ারের মাধ্যমে নির্ধারণ করে দেবে। একই সঙ্গে আবেদনকারীর আসন বণ্টন অনুযায়ী প্রশ্নের সেট নির্ধারণ করে দেবে। প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে এবার ২০ সেট প্রশ্ন তৈরি করা হবে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ৩০ জুলাই ‘সহকারী শিক্ষক’ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। গত ১ থেকে ৩০ আগস্ট পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন কার্যক্রম শেষ হয়। ১২ হাজার আসনের বিপরীতে সারাদেশ থেকে মোট ২৪ লাখ ৫ জন প্রার্থী আবেদন করেন। সে হিসাবে প্রতি আসনে লড়বেন ২০০ জন।

Admit Card Download

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, এবার সর্বোচ্চ আবেদন জমা পড়েছে চট্টগ্রাম জেলায়। এ জেলায় মোট ৯৮ হাজার ৯৬৯টি আবেদন পড়েছে। এরপরে ময়মনসিংহ জেলায় ৮৮ হাজার ২১৮টি, কুমিল্লায় ৮৪ হাজার ৭২৮টি, দিনাজপুরে ৬২ হাজার ৯৭১টি, রংপুরে ৫৯ হাজার ৭১টি, জয়পুরহাটে ১৮ হাজার ১৭৮টি, বগুড়ায় ৬৪ হাজার ৭২৭টি, জামালপুর ৫০ হাজার ৫০টি, যশোরে ৫৫ হাজার ৯৩২টি, টাঙ্গাইলে ৬১ হাজার ৬৩০টি, নওগাঁয় ৪৯ হাজার ৮৬৩টি, রাজশাহীতে ৫৭ হাজার ৩৮২টি, ঢাকায় ৬৪ হাজার ৫৫৮, বরিশালে ৬১ হাজার ৮৮৩টি, সিলেট জেলায় ৫০ হাজার ৩৭০টি আবেদন জমা পড়েছে। এছাড়া চাঁপাই নবাবগঞ্জে ৩০ হাজার ২৭১টি, নাটোরে ৩৫ হাজার ২৫৭টি, সিরাজগঞ্জে ৫৮ হাজার ১৪৯টি, পাবনায় ৫১ হাজার ২৩১, কুষ্টিয়ায় ৩২ হাজার ৬০৯টি, মেহেরপুরে ১০ হাজার ৮৮৮টি, চুয়াডাঙ্গায় ১৮  হাজার ৬৬১টি, ঝিনাইদহে ৩৭ হাজার ৬১৭টি, মাগুরায় ২১ হাজার ৯৬২টি,  নড়াইলে ১৫ হাজার ৬১৪টি, সাতক্ষীরায় ৪৫ হাজার ৬১টি, খুলনায় ৪৭ হাজার ১৮৮টি, বাগেরহাটে ৩২ হাজার ৯৭টি, শেরপুরে ২৫ হাজার ৪৬৬টি, নেত্রকোনায় ৪২ হাজার ৭৫৩টি, কিশোরগঞ্জে ৪৭ হাজার ৮৮৫টি, গাজীপুরে ৩৫ হাজার ৫১৭টি, নরসিংদীতে ৩৮ হাজার ১৪৩টি, মানিকগঞ্জে ২৫ হাজার ৭১১টি, নারায়ণগঞ্জে ২৭ হাজার ১২৭টি, মুন্সীগঞ্জে ১৮ হাজার ৭৫৯টি, রাজবাড়ীতে ২১ হাজার ৯০৬টি, ফরিদপুরে ৩৩ হাজার ৬৪৩টি, মাদারীপুরে ২৪ হাজার ৮০৭টি, শরীয়তপুরে ১৮ হাজার ৭৮৬টি, গোপালগঞ্জে ২৯ হাজার ২১৫টি, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৩৮ হাজার ৪০টি, চাঁদপুরে ৪৬ হাজার ৯১টি, লক্ষ্মীপুরে ২৩ হাজার ৩৩০টি, নোয়াখালীতে ৪০ হাজার ৭৩৯টি, ফেনীতে ২১ হাজার ৫০১টি, কক্সবাজারে ২৬ হাজার ৭৫০টি, পিরোজপুরে ২৯ হাজার ২৭৮টি, ঝালকাঠিতে ১৯ হাজার ১৩৮টি, বরগুনায় ২১ হাজার ৭১৭টি, পটুয়াখালীতে ৪০ হাজার ৮০৭টি, ভোলায় ২৫ হাজার ১৪৫টি, সুনামগঞ্জে ৩৫ হাজার ৫১২টি, হবিগঞ্জে ৩৩ হাজার ৪৭৫টি, মৌলভীবাজারে ৩২ হাজার ১০৬টি, পঞ্চগড়ে ২১ হাজার ৬২৯টি, ঠাকুরগাঁওয়ে ৩১ হাজার ৭৯৭টি, নীলফামারীতে ৩৯ হাজার ৭৫২টি, লালমনিরহাটে ২৬ হাজার ১২২টি, কুড়িগ্রামে ৪৩ হাজার ২৯৪টি এবং গাইবান্ধায় ৫৫ হাজার ৫১৭টি আবেদন।

Admit Card Download

Primary Assistant Teacher Job Exam & Admit Card Download

Written test for recruitment of assistant teachers in government primary school will be held in 5 steps. The first phase may be tested on May 10. The first phase test will be held in 7 districts, which will be held in 7 districts. This decision was taken at a meeting of officials of the Primary Education Department with experts at Bungalow (23 April).

In the meeting, detailed discussions about the scheduling of testing, designing and evaluation of OMR forms and publication of results. According to the decision of the meeting, the recruitment test may be held on May 10 in the first phase. In the districts where the written examination will end before, the final result will be published before oral test.

Admit Card Download

An official of the Department of Primary Education said on Tuesday night that if the preparations are in place, the appointment of assistant teachers will be held on May 10. As the candidate is more than 5 steps will be recruited.

Earlier, the ministry had taken a policy decision to begin writing ‘Assistant Teacher Appointment-18’ from 1 February onwards. However, due to the SSC examination it was decided to take it back in March. On Jan 15, the Ministry of Primary and Mass Education decided to launch a recruitment test at a meeting of the ministry on 15th January. The Directorate was instructed to complete all the preparations for that goal. However, it was not possible to take the test on 13 March as ‘National Education Week 2019’.

It is learned that this recruitment test will be taken in full digitalized system under the supervision of Bangladesh University of Engineering (BUET). All sets of question papers will be sent to the Deputy Commissioner (DC) through internet on the previous night of the test in the scheduled district. The question papers will be printed at center 8 in the morning of the examination. The test will be taken in the municipal area. The applicant’s seat will be set by BUET sophisticated software. At the same time the applicant’s seat will determine the set of questions according to distribution. The questionnaire will be made to set 20 set questions.

According to the Primary Education Department, on July 30 last year, the appointment notice of ‘Assistant Teacher’ was published. The online application process ends from 1 to 30 August. In contrast to 12 thousand seats, a total of 2.45 lakh applicants from across the country apply. He will fight in every seat as 200 people.

Primary education department sources said that the highest petition has been submitted in Chittagong district. A total of 98 thousand 969 applications have been received in this district. Then, 88 thousand 218 in Comilla, 84 thousand 728 in Comilla, 62 thousand 971 in Dinajpur, 59 thousand 71 in Rangpur, 18 thousand 178 in Joypurhat, 64 thousand 772 in Bogra, Jamalpur 50 thousand 50, in Jessore 55 thousand 93, Tangail 61 thousand 630, Naogaon 49 thousand 863, 57 thousand 382 in Rajshahi, 64 thousand 558 in Dhaka, 61 thousand 883 in Barisal, 50 thousand 370 applications were filed in Sylhet district. Besides, 30 thousand 271 in Chapai Nawabganj, 35 thousand 255 in Natore, 58 thousand 149 in Sirajganj, 51 thousand 231 in Pabna, 32 thousand 609 in Kushtia, 10 thousand 888 in Meherpur, 18 thousand 661 in Chuadanga, 37 thousand 617 in Jhenaidah, 21 thousand 962 in Magura, 15 thousand in Narail 614, 45 thousand 61 in Satkhira, 47 thousand 188 in Khulna, 32 thousand 97 in Bagerhat, 25 thousand 466 in Sherpur, 4,753 in Netrokona, 47,885 in Kishoreganj, 35 thousand 517 in Gazipur, 38 thousand 143 in Narsingdi, 25 thousand 711 in Manikganj, 27 thousand 127 in Narayanganj, 18 thousand 759 in Munshiganj, 21 thousand 906 in Rajbari, 33 thousand 643 in Faridpur, 24,07,7,7 in Madaripur, 18 thousand 786 in Shariatpur, 29 thousand 215 in Gopalganj, 38 thousand 40 in Brahmanbaria, 46 thousand 91 in Chandpur, Lakshma 23 thousand 330 in Noakhali, 40 thousand 739 in Noakhali, 21 thousand 501 in Feni, 26 thousand 750 in Cox’s Bazar, 29 thousand 278 in Pirojpur, 19 thousand 138 in Jhalakathi, 21 thousand 717 in Barguna, 40 thousand 807 in Patuakhali, 25 thousand 145 in Bhola, 35 thousand 512 in Sunamganj, 33 thousand 475 in Habiganj, 32 thousand 106 in Moulvibazar, 21 thousand 629 in Panchagarh, 31 thousand 797 in Thakurgaon, 39 thousand 752 in Nilphamari 26, 122 in Lalmonirhat, 43, 294 in Kurigram and 55 thousand 517 applications in Gaibandha.

Leave a Reply